,

শিরোনাম :
«» মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার প্রধান চ্যালেঞ্জ নিন্দা ও কুসংস্কার : সায়মা «» বগুড়া-৬ আসনে বেগম খালেদা জিয়াসহ ৫ জনের দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ «» ক্রয় সংক্রান্ত্র মন্ত্রিসভা উপ-কমিটির তিনটি সরকারি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন «» বাংলাদেশ গেজেট, মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল অনুসারে গেজেট প্রকাশের দিন থেকে পরবর্তী সময়ে রির্টান এর ফি ও জরিমানা কার্যকর করলে ব্যবসায়ীদের জন্য ব্যবসা সহজী করন হবে। «» পা হারানো রাসেলকে ক্ষতিপূরণের বাকি টাকা আজও দেয়নি গ্রিনলাইন : আদালতের ক্ষোভ «» জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় বাংলাদেশকে গুরুত্ব দেয়ার আহবান স্পিকারের «» ভারতের জনগণ যাকেই নির্বাচিত করুক তার সঙ্গেই বিদ্যমান সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে : কাদের «» আইন অনুযায়ী কেরানীগঞ্জে আদালত স্থাপন করা হয়েছে : তথ্যমন্ত্রী «» নবম ওয়েজ বোর্ড দ্রুত হয়ে যাবে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী «» যুদ্ধ নয়, বাধা দিতেই ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান : পেন্টাগণ প্রধান

মি টু আন্দোলন এখন ‘ফান’ আর ‘বিনোদনে’ পরিণত হয়েছে : কেট শর্মা

বিনোদন ডেস্ক:-বর্ষীয়ান অভিনেতা নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে তনুশ্রী দত্ত যৌন হেনস্তার অভিযোগ তোলার পর অনেকেই এ নিয়ে মুখ খোলেন। বলিউডে শুরু হয় হ্যাশট্যাশ মি টু আন্দোলনের ঝড়। একে একে বেরিয়ে আসে সাজিদ খান, বিকাশ বেহল, অলোক নাথ, রজত কাপুর ও সুভাষ ঘাইসহ বিনোদন জগতের অনেক রথী-মহারথীর নাম।

ছোটপর্দার অভিনেত্রী কেট শর্মা নির্মাতা সুভাষ ঘাইয়ের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলেছিলেন। পরে সুভাষ ঘাইয়ের বিরুদ্ধে মামলাও করেন তিনি। কেটের অভিযোগ ছিল, সুভাষ তাঁকে অন্ধকার কক্ষে জোর করে চুমু দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। সেই মামলা তুলে নিয়েছেন এ অভিনেত্রী।

দুঃখ করে কেট শর্মা বলেছেন, মি টু আন্দোলন এখন ‘ফান’ আর ‘বিনোদনে’ পরিণত হয়েছে। তিনি এর অংশ হতে চান না।

সংবাদমাধ্যম মিড-ডেকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কেট বলেছেন, ‘হ্যাঁ, মুম্বাই পুলিশকে জানিয়েছি যে, সুভাষ ঘাইয়ের বিরুদ্ধে আমার অভিযোগ তুলে নিতে চাই। আমি আমার পরিবারের দেখভাল করতে চাই।’ তিনি আরো বলেন, তাঁর মা অসুস্থ। যা ঘটেছে তার বিচার পাওয়ার চাইতে মায়ের পাশে থাকা জরুরি।

এ অভিনেত্রী আরো বলেন, মামলা করা হলেও মি টু আন্দোলনের পর এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

মামলা তুলে নেওয়ার জন্য মুম্বাই পুলিশকে তিনি যে লিখিত আর্জি জানিয়েছেন, তার একটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেছেন কেট শর্মা নিজেই।

ইনস্টাগ্রামে কেট শর্মা লিখেছেন, ‘কারো কাছ থেকে কিছুই চাই না, ট্রমা আর ঝাঁকুনিতে আর যেতে চাই না। পুরো #মিটু প্রচারণা ফানে (মজা) পরিণত হয়েছে এবং ভারতের বিনোদনে পরিণত হয়েছে, আমি ফানের অংশ হতে চাই না।’

নিজের মি টু গল্প প্রকাশকে ‘সাহসিকতার পদক্ষেপ’ বলেই মনে করেন কেট। কিন্তু এর পরই নাকি মানুষ তাঁকে ‘মিটু’ বলে ডাকা শুরু করে!

‘সবকিছুর চাইতে আমার মায়ের গুরুত্ব বেশি এবং তাঁর স্বাস্থ্য। কোনো বিচারই পাব না, এসব কারণে যদি তাঁকে হারাই… আমার পরিবার ও ক্যারিয়ারের দিকে মনোযোগ দিতে চাই। বাঁচতে চাই, সামনে এগোতে চাই। সবাইকে ধন্যবাদ’, লেখেন কেট।

সুভাষ ঘাইয়ের বিরুদ্ধে করা মামলা তুলে নিতে পুলিশের কাছে লিখিতভাবে আবেদন করেছেন কেট শর্মা। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘আমার পরিবার ও মায়ের জটিল পরিস্থিতির কারণে আমার যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলে নিতে চাই এবং ভবিষ্যতে এ নিয়ে আর এগোতে চাই না।’

এদিকে ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে সুভাষ ঘাই লিখেছেন, তিনি মি টু আন্দোলন ও নারীর ক্ষমতায়নের বড় সমর্থক। তিনি আশা করেন, স্বল্প সময়ের খ্যাতির জন্য কেউ যেন মি টুর অপব্যবহার না করে। আর সবকিছুই তাঁর আইনজীবী দেখভাল করছে বলেও জানান তিনি। সূত্র : বলিউড বাবল

Share Button
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত : সিএনআই২৪ ডটকম লিমিটেড || Desing & Developed BY Themesbazar.com