,

শিরোনাম :
«» উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত করতে চাই : মো. শাহাব উদ্দিন «» দলীয় কর্মীদের প্রতি তথ্যমন্ত্রী,বিজয়ে বিনয়ী হোন যাতে মানুষ ভালোবাসে «» আলোকচিত্র কথার চেয়ে শক্তিশালী : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী «» মৎস্য অভয়াশ্রমকে লিজ না দেওয়ার নির্দেশ মৎস্য প্রতিমন্ত্রীর «» কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাসে সংঘটিত শ্রমিক সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে পদক্ষেপ গৃহীত «» জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জোটে নীতি ও আদর্শের ঘাটতি আছে : ওবায়দুল কাদের «» আওয়ামী লীগের বিজয় এশিয়া ও বিশ্ব সম্প্রদায়ের জন্য ইতিবাচক ফল আনতে সহায়ক হবে : বিশেষজ্ঞগণ «» এরশাদের অবর্তমানে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব জিএম কাদেরের «» বিজয় সমাবেশ ঘিরে ডিএমপি’র ট্রাফিক নির্দেশনা «» আগামীকাল আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ

দ্বিতীয় ম্যাচেই জয়ের মুখ দেখলো মাশরাফি বিন মর্তুজা

স্পোর্ট ডেস্ক:-বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ষষ্ঠ আসরের নিজেদের প্রথম ম্যাচ হারের পর নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেই জয়ের মুখ দেখলো মাশরাফি বিন মর্তুজার রংপুর রাইডার্স। আজ দিনের দ্বিতীয় ও টুর্নামেন্টের চতুর্থ ম্যাচে রংপুর ৮ রানে হারিয়েছে খুলনা টাইটান্সকে।
মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং-এর সিদ্ধান্ত নেন খুলনা টাইটান্সের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ব্যাট হাতে ধীরে সুস্থেই এগোতে থাকেন রংপুরের দুই ওপেনার রিলি রোসৌ ও মেহেদি মারুফ। তবে শুরুতে দলকে ভালো শুরু এনে দিতে পারেননি তারা। দলীয় ১৮ রানে বিচ্ছিন্ন হন ওপেনিং জুটি। ১৩ বলে ৫ রান করে ফিরেন মারুফ।
এরপর ইংল্যান্ডের অ্যালেক্স হেলস ও মোহাম্মদ মিথুনকে নিয়ে বড় জুটি গড়ার চেষ্টা করেন রোসৌ। কিন্তু সফল হননি। হেলসের সাথে ২৪ ও মিথুনের সাথে ২৩ রানের জুটি গড়েন রোসৌ। হেলস ৯ বলে ১৫ ও মিথুন ১৭ বলে ১৭ রান করেন।
দলীয় ৬৫ রানে তৃতীয় উইকেট পতনের পর বোপারাকে নিয়ে দলের রানের চাকা সচল রাখেন রোসৌ। মোকাবেলা করা ৪০তম বলে হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ পান তিনি । হাফ-সেঞ্চুরির পর মারমুখী হয়ে উঠেন তিনি। অন্য প্রান্তে হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারেননি বোপারাও। খুলনার বোলারদের বিপক্ষে অনায়াসে রান তুলেন বোপারা। রোসৌ-বোপারার বিধ্বংসী রুপে শেষ ৫ ওভারে রংপুর পায় ৬৭ রান পায় রংপুর। চতুর্থ উইকেটে ৬১ বল মোকাবেলা করে ১০৪ রানের জুটি গড়েন তারা। এতে ৩ উইকেটে ১৬৯ রানের সংগ্রহ পায় রংপুর।
রোসৌ ৮টি চার ও ২টি ছক্কায় ৫২ বলে অপরাজিত ৭৬ ও বোপারা ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৯ বলে অপরাজিত ৪০ রান করেন। খুলনার আফগানিস্তানের খেলোয়াড় জাকির খান ৩০ রানে ১ উইকেট নেন।
১৭০ রানের লক্ষ্যে উড়ন্ত সূচনা পায় খুলনা টাইটান্স। রংপুরের বোলারদের সামনে মারমুখী রুপ নেন খুলনার দুই ওপেনার আয়ারল্যান্ডের পল র্স্ট্রার্লিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকী। ৬৭ বলে স্কোরবোর্ডে ৯০ রান জড়ো করেন র্স্ট্রালিং ও জুনায়েদ। ৩০ বলে ৩৩ রান করা জুনায়েদকে শিকার করে রংপুরকে প্রথম ব্রেক-থ্রু এনে দেন ইংল্যান্ডের পেসার বেনি হাওয়েল।
প্রথম শিকার করে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠে রংপুরের বোলাররা। এরপর ১৮ রানের ব্যবধানে খুলনার আরও ২ উইকেট শিকার করেন পেসার শফিউল ইসলাম ও অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ১ রান করে শফিউলের বলে আউট হন তিন নম্বরে ব্যাট হাতে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে রংপুরকে বড় সাফল্য এনে দিয়েছেন মাশরাফি। উইকেটে সেট হয়ে হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেয়া র্স্ট্রার্লিকে ৬১ রানে শিকার করেন ম্যাশ। তার ৪৬ বলের ইনিংসে ৮টি চার ও ১টি ছক্কা ছিলো।
১০৮ রানে তৃতীয় উইকেট পতনের পর খুলনাকে খেলায় ফেরানোর চেষ্টা করেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও আরিফুল হক। কিন্তু তাদের রান তোলার গতি ছিলো কম। জুটিতে ২৭ বলে ৩২ রান যোগ করেন তারা। এতে আস্কিং রেট বেড়ে যায় খুলনার। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬১ রান পায় খুলনা। দলের পক্ষে মাহমুদুল্লাহ ২৪, আরিফুল ১২ ও জহিরুল ইসলাম ৮ বলে অপরাজিত ১২ রান করেন। রংপুরের শফিউল ৪৪ রানে ২ উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন রংপুরের রোসৌ।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
রংপুর রাইডার্স : ১৬৯/৩, ২০ ওভার (রোসৌ ৭৬*, বোপারা ৪০*, জাকির ১/৩০)।
খুলনা টাইটান্স : ১৬১/৫, ২০ ওভার (র্স্ট্রার্লিং ৬১, জুনায়েদ ৩৩, শফিউল ২/৪৪)।
ফল : রংপুর রাইডার্স ৮ রানে জয়ী।
ম্যাচ সেরা : রিলি রোসৌ (রংপুর রাইডার্স)।

Share
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত : সিএনআই২৪ ডটকম লিমিটেড || Desing & Developed BY Themesbazar.com