×
ব্রেকিং নিউজ :
তিনি নির্বাচিত হলে মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করা দেশগুলোকে ‘মূল্য দিতে হবে’ : বাইডেন নেভালনিকে ব্যক্তিগতভাবে জার্মানিতে চিকিৎসার অনুমতি দিলেন পুতিন সমুদ্র বন্দরসমূহের জন্য চার নম্বর সতর্কতা সংকেত ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় আগাম প্রস্তুতিমূলক সিদ্ধান্ত গ্রহণ জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাত মোকাবেলায় সক্ষম হচ্ছে দেশ : পরিবেশ মন্ত্রী কৃষি উৎপাদন ও মজুদ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বৈঠক বঙ্গবন্ধুর নামে পদক প্রবর্তন সংক্রান্ত কমিটির সভা অনুষ্ঠিত চাইনিজ ফুটবলের ফাইনালে ১০ হাজার দর্শক প্রবেশের অনুমোদন : এফএ কর্মকর্তা দেশে সকল ধর্মের মানুষ সুন্দর পরিবেশে নিজ ধর্মীয় উৎসব পালন করছে : স্পিকার শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে র‌্যাবের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার
  • আপডেট টাইম : 13/10/2020 11:31 PM
  • 35 বার পঠিত
ছবি-সংগৃহীত

শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৩০ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।৬ কোটি ২৪ লাখ ১৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে করা দুদকের মামলায় এ প্রতিবেদন দাখিল রকরা হবে।
মঙ্গলবার মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কে এম ইমরুল কায়েশ নতুন এ দিন ধার্য করেন।
এরআগে ৪ আগস্ট দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১-এর উপ-পরিচালক শাহীন আরা মমতাজ বাদি হয়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন।
২০১৯ সালের ১২ অক্টোবর থেকে চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ওয়েস্টিন হোটেলের ২৫টি রুমে অবস্থান করে রুম-নাইট, রেস্তোরাঁর খাবার, মদ, স্পা, লন্ড্রি, মিনি বার ফুড, মিনি বার বাবদ মোট তিন কোটি ২৩ লাখ ২৪ হাজার ৭৬১ টাকার বিল ক্যাশে পরিশোধ করেন পাপিয়া। ওয়েস্টিন হোটেলে থাকা অবস্থায় প্রায় ৪০ লাখ টাকার শপিং করেন। যার কোনো বৈধ উৎস দেখাতে পারেননি। এছাড়া ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে ২০২০ সালে এপ্রিল পর্যন্ত পাঁচ বছরে বাসাভাড়া বাবদ ৩০ লাখ টাকা, গাড়ির ব্যবসায় বিনিয়োগকৃত এক কোটি টাকা এবং নরসিংদীতে কেএমসি কার ওয়াশ সলিউশনে বিনিয়োগকৃত ২০ লাখ টাকা, বিভিন্ন ব্যাংকে তার এবং তার স্বামীর নামে জমাকৃত ৩০ লাখ ৫২ হাজার ৯৫৮ টাকারও কোনো বৈধ উৎস পাওয়া যায়নি দুদকের অনুসন্ধানে।
অন্যদিকে র‌্যাবের অভিযানে তার বাসা থেকে ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা এবং সুমনের নামে হোন্ডা সিভিএ ২০১২ মডেলের ২২ লাখ টাকার গাড়ি উদ্ধার করা হয়। এরও কোনো বৈধ উৎস মেলেনি দুদকের অনুসন্ধানে।
গত ২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দেশত্যাগের প্রাক্কালে পাপিয়াসহ চারজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।
গ্রেফতার অন্যরা হলেন-পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমন (৩৮), সাব্বির খন্দকার (২৯) ও শেখ তায়্যিবা (২২)।
তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, নগদ ২ লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ টাকার জাল মূদ্রা, ১১ হাজার ৯১ ইউএস ডলারসহ বিভিন্ন দেশের মূদ্রা জব্দ করা হয়।
গ্রেফতারের পর ওইদিন রাতেই নরসিংদীর বাসায় এবং পরের দিন ২৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে হোটেল ওয়েস্টিনে তাদের নামে বুকিং করা বিলাসবহুল প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটে অভিযান চালানো হয়। এছাড়া ফার্মগেট এলাকার ২৮ নম্বর ইন্দিরা রোডে রওশন’স ডমিনো রিলিভো নামক বিলাসবহুল ভবনে তাদের দুটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, দ’ুটি পিস্তলের ম্যাগজিন, ২০ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ ও নগদ ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, পাঁচটি পাসপোর্ট, তিনটি চেক, বিদেশি মূদ্রা, বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি ভিসা ও এটিএম কার্ড জব্দ করে র‌্যাব। অস্ত্র মামলায় ইতোমধ্যে পাপিয়া দম্পতির ২৭ বছর সাজাও হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...