×
ব্রেকিং নিউজ :
দুই বোন মুশফিকা ও মোবাশশারাকে গুলশানের বাড়িতে প্রবেশসহ নিরাপত্তা নিশ্চিতে হাইকোর্টের নির্দেশ অবৈধ অস্ত্র ও মাদক রাখার দায়ে ইরফান সেলিম ও দেহরক্ষীর এক বছর করে কারাদন্ড প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পাঁচ দিনব্যাপী দুর্গাপূজা নীলফামারীতে দুর্গাপূজায় চারশ’ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরণ তাসকিন-রুবেলের পারফরমেন্সে মুগ্ধ পাপন ক্রিকেট-দক্ষিণ আফ্রিকা : একত্রে বোর্ডের সকল কর্মকর্তার পদত্যাগ বাড়ি ফিরলেন কপিল চট্টগ্রামে করোনায় সংক্রমণ হার বেড়েছে সিলেট বিভাগে ২৪ ঘন্টায় করোনায় সুস্থ ৪২, আক্রান্ত ৩৭ জন অপরাধ করলে তাকে আইনের মুখোমুখি হতেই হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • আপডেট টাইম : 17/10/2020 01:18 PM
  • 27 বার পঠিত
ছবি-সংগৃহীত

 জেলায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। একই সাথে সংক্রমণে গত ৪০ দিনে সর্বোচ্চ হার রেকর্ড হয়েছে।
সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বাসস’কে বলেন, গতকাল শুক্রবার চট্টগ্রামের সাতটি ও কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে ৭৪৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে নতুন ৮২ জনের সংক্রমণ ধরা পড়ে। যাতে শহরের বাসিন্দা ৭৫ জন এবং গ্রামের ৭ জন। ফলে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ২০ হাজার ৫৫ জন।
সংক্রমণের হার ১০ দশমিক ৯০ শতাংশ। এর চেয়ে বেশি সর্বশেষ ১৬ দশমিক ৫৪ শতাংশ সংক্রমণ হার রেকর্ড হয় ৬ সেপ্টেম্বর। তবে এ মাসে আরো তিনদিন সংক্রমণ হার ১০ শতাংশের ওপরে ওঠেছিল। সর্বনি¤œ সংক্রমণ হার ছিল ৯ সেপ্টেম্বর, ৩ দশমিক ৯ শতাংশ।
সিভিল সার্জন কার্যালয়ের রিপোর্ট মতে, এদিন করোনায় কেউ মারা য়ায়নি । ফলে মৃতের সংখ্যা আগের ৩০১ জনই থাকলো। এর মধ্যে শহরের বাসিন্দা ২০৮ জন এবং গ্রামের ৯৩ জন।
ল্যাবভিত্তিক রিপোর্টে দেখা যায়, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে। এখানে ২৪০ জনের নমুনার মধ্যে ৩০ জন পজিটিভ শনাক্ত হন। ফৌজদারহাটস্থ বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ২০৭টি নমুনায় ১০ টিতে করোনার জীবাণু পাওয়া যায়।
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাবে ৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১ জন ভাইরাসবাহক হিসেবে চিহ্নিত হন। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৫৮ জনের নমুনায় ১০ জন করোনাক্রান্ত বলে শনাক্ত হন। আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে এদিন কোনো নমুনা পরীক্ষা হয়নি।
নগরীর বেসরকারি তিন ল্যাবরেটরির মধ্যে শেভরনে ৯৯, ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ৫৪ এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ১১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে যথাক্রমে ৯, ৮ ও ৪ টি নমুনায় করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব মিলে। এদিন চট্টগ্রামের ১১ জনের নমুনা পাঠানো হয় কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে। পরীক্ষায় সবক’টির রিপোর্টই নেগেটিভ আসে।
সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলায় প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে ৩ এপ্রিল। প্রথমদিকে শুধুমাত্র বিআইটিআইডি ও চমেক হাসপাতালে পরীক্ষা হতো। এখন সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে নগরীর আটটি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করা হয়। গতকাল পর্যন্ত ১ লক্ষ ১৮ হাজার ৬২৮টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। মোট ২০ হাজার ৫৫ জন করোনাক্রান্তের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ৬৯৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩০১ জনের। এ পর্যন্ত ২২ হাজার ৯৫৬ বিদেশগামী যাত্রীর নমুনা পরীক্ষা হয়। এর মধ্যে ৫৪৫ জনের দেহে ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...