Logo
×
ব্রেকিং নিউজ :
সংশোধনের সুযোগ রেখে ডিসেম্বরে ড্যাপ গেজেট প্রকাশ হচ্ছে : এলজিআরডি মন্ত্রী পশ্চিম তীরে ইসরাইল আরো ১৩ শতাধিক বাড়ি নির্মাণ করবে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত ২৪ ঘন্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে নতুন ১৭৯ জন রোগী ভর্তি ভারতে ১শ’ কোটি মানুষকে কোভিড-১৯ টিকা দেয়ায় মোদীকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন পেঁয়াজ উৎপাদন বৃদ্ধি ও সংরক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে : বাণিজ্যমন্ত্রী ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক অন্য যে কোন কৌশলগত অংশীদারদের চেয়ে গভীরতর : হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা সমুদ্র অর্থনীতির অমিত সম্ভাবনা, দরকার সঠিক পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন ক্যাচ মিসের খেসারত দিল বাংলাদেশ দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্তকারীদের সম্পর্কে সচেতন হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
  • আপডেট টাইম : 12/10/2021 09:56 PM
  • 44 বার পঠিত

রংপুরের কাউনিয়ায় রেলওয়ের টিকিট বিক্রির প্রায় ৩৪ লাখ টাকা আত্মসাতের দায়ে বুকিং মাস্টার মিশুক আল মামুনকে দুদুক গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়েছে। একই ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলায় কাউনিয়া রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার বাবু আল রশিদকে সাময়িক বরখাস্ত হয়েছে।
লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম জোনের অধিনে কাউনিয়া রেলওয়ে স্টেশনে গত ৬ মাসে লালমনিরহাট ও রংপুর এক্সপ্রেস আন্তঃনগর ট্রেনসহ ১৪টি ট্রেনের টিকিট বিক্রির টাকা রেলওয়ে কোষাগারে জমা হয়নি। ঘটনাটি গত ২৪ সেপ্টেম্বর রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজারের নজরে আসে। গত ৪ অক্টোবর কাউনিয়া রেলওয়ের প্রধান টিকিট বুকিং ম্যানেজার মিশুক আল মামুনকে কার্যালয়ে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদে টিকিট বিক্রির প্রায় ৩৪ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনাটি নিশ্চিত হয়।
এ ঘটনায় লালমনিরহাট রেলওয়ে জুনিয়র ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর ছহির উদ্দিন বাদী হয়ে দুদকে মামলা করা হয়। ওই মামলায় তাকে আটক করা হয়। বর্তমানে সে রংপুর কারাগারে জেল হাজতে রয়েছে। একই ঘটনায় কাউনিয়া রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার বাবু আল রশিদকে কর্তব্যে অবহেলার দায়ে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তার সম্পৃক্ততা আছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
বুকিং মাস্টার মিশুক আল মামুনের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আত্মসাতের অর্থ দিয়ে সে আইপিএল-এর ক্রিকেট খেলা দেখে জুয়ায় (বাজি) হেরেছে।
লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার শাহ সুফি নুর মোহাম্মদ জানান, গত ৬ মাস ধরে লালমনিরহাট ও রংপুর এক্সপ্রেস আন্তঃনগরসহ বিভিন্ন রুটের ১৪টি ট্রেনের টিকিট বিক্রির কোনো টাকা রেলওয়ে কোষাগারে জমা হয়নি। গত ১০ আগস্ট হতে ১ অক্টোবর পর্যন্ত রেলওয়ের আয়ের ৩৩ লাখ ৮৫ হাজার ৫০০ টাকার কোন হিসেব নেই। মিশুক ১ মাস ২০দিন টিকেট বিক্রির টাকা কোষাগারে জমা না দিয়ে আত্মসাত করে। আটক বুকিং সহকারী মিশুক কুড়িগ্রাম জেলার চর বজরা গ্রামের মনছুর কাদেরের পুত্র।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...