×
ব্রেকিং নিউজ :
দুর্যোগ মোকাবিলায় টেলিযোগাযোগ সেবা খুবই গুরুত্বপূর্ণ : ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে গাজীপুরের সংসদ সদস্য শামসুন্নাহারের শ্রদ্ধা বগুড়ায় বিএডিসি’র উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ গলফ টুর্ণামেন্টে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে কোনো বাধা নেই: আইনমন্ত্রী আলজেরিয়ায় অনুষ্ঠিত পিইউআইসি’র সভায় বাংলাদেশ সংসদীয় প্রতিনিধিদলের অংশগ্রহণ প্রধানমন্ত্রী রোববার রাজশাহীতে ১,৩১৬.৯৭ কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন বিএনপির আন্দোলন চলে রিমোট কন্ট্রোলে অদৃশ্য নির্দেশে : ওবায়দুল কাদের দম ফুরিয়ে এখন হাঁটার পথ ধরেছে বিএনপি : তথ্যমন্ত্রী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২ হাসপাতালে ভর্তি
  • আপডেট টাইম : 23/01/2023 10:46 PM
  • 28 বার পঠিত

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে আজ তার সংসদ ভবনের কার্যালয়ে ঢাকায় নবনিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইওয়ামা কিমিনোরি সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন।
সাক্ষাৎকালে তারা সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপের মাধ্যমে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়ন, বাংলাদেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন, ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার, বিনিয়োগ বৃদ্ধি ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।
স্পিকার বলেন, স্বাধীনতার পর থেকেই জাপান বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু। স্বাধীনতার পর থেকে জাপান বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী। আন্তর্জাতিক ফোরামে জাইকা বাংলাদেশকে সব সময় সহযোগিতা দিয়ে আসছে। দুইদেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো জোরদারকরণে সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপের পারস্পরিক সফর ও মতবিনিময়ের মাধ্যমে অভিজ্ঞতা অর্জন জরুরি। এর মাধ্যমে দুদেশের সংসদ সদস্যগণ আন্তর্জাতিক ফোরামে বাংলাদেশ ও জাপানের সাধারণ ইস্যুতে কাজ করতে পারবে। এসময় বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে জাপানের বিনিয়োগ বৃদ্ধির জন্য রাষ্ট্রদূতকে কাজ করার অনুরোধ জানান স্পিকার।
বাংলাদেশের নয়নাভিরাম সৌন্দর্যের প্রশংসা করে নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ইওয়ামা কিমিনোরি বলেন, বাংলাদেশ জাপানের অনেক পুরনো বন্ধু। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের স্থিতিশীল আর্থ-সামাজিক পরিস্থিতি ও চলমান উন্নয়ন প্রশংসনীয়। বাংলাদেশের মানুষ অত্যন্ত অতিথিপরায়ণ। এসময় পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ও বাংলাদেশে বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকারকে জাপান সফরের আমন্ত্রণ জানান।
ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, পদ্মা সেতু চালুর মাধ্যমে বাংলাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা অনন্য মাত্রায়, যা সমগ্র দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে। মাতাড়বাড়ি গভীর সমুদ্রবন্দর চালু হলে পানিপথে যোগাযোগব্যবস্থা আরো উন্নত হবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন রাষ্ট্রদূত। 
এসময় সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...