,

শিরোনাম :
«» উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত করতে চাই : মো. শাহাব উদ্দিন «» দলীয় কর্মীদের প্রতি তথ্যমন্ত্রী,বিজয়ে বিনয়ী হোন যাতে মানুষ ভালোবাসে «» আলোকচিত্র কথার চেয়ে শক্তিশালী : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী «» মৎস্য অভয়াশ্রমকে লিজ না দেওয়ার নির্দেশ মৎস্য প্রতিমন্ত্রীর «» কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাসে সংঘটিত শ্রমিক সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে পদক্ষেপ গৃহীত «» জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জোটে নীতি ও আদর্শের ঘাটতি আছে : ওবায়দুল কাদের «» আওয়ামী লীগের বিজয় এশিয়া ও বিশ্ব সম্প্রদায়ের জন্য ইতিবাচক ফল আনতে সহায়ক হবে : বিশেষজ্ঞগণ «» এরশাদের অবর্তমানে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব জিএম কাদেরের «» বিজয় সমাবেশ ঘিরে ডিএমপি’র ট্রাফিক নির্দেশনা «» আগামীকাল আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ

তরুণ শিক্ষার্থীরাই সমাজ পরিবর্তনের দূত : স্পিকার

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, তরুণ শিক্ষার্থীরাই সমাজ পরিবর্তনের দূত। তরুণরাই ইতিবাচক পরিবর্তন এনে গড়ে তুলবে সমৃদ্ধশালী ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ। সে কারণে শিক্ষার্থীদেরকে শিক্ষা জীবনে সচেষ্ট থেকে জ্ঞান নির্ভর শিক্ষা গ্রহণের আহ্বান জানান তিনি।
স্পিকার আজ ঢাকার ধানমন্ডিতে ইউনিভার্সিটি অভ্ লিবারেল আর্টস এর ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
স্পিকার বলেন, তরুণ প্রজন্ম ভবিষ্যতে নেতৃত্ব দেবে। উদ্ভাবনী কৌশল এবং গবেষণার মাধ্যমে বিশ্বকে গড়ে তুলতে হবে। বর্তমান বিশ্বের প্রত্যেক নাগরিক তথ্যপ্রযুক্তি এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে একে অপরের সাথে সংযুক্ত। এ সময় তরুণ প্রজন্মকে বিশ্বে নেতৃত্ব দিতে তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষায় শিক্ষিত হতে সকলের প্রতি তিনি আহ্বান  জানান।
ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বিশ্বে বাংলাদেশ আজ দ্রুত অগ্রসরমান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বর্তমান সরকার তৃণমূলে সকল সুবিধা নিশ্চিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বিগত দশবছরে দারিদ্র্যের হার ৪০ শতাংশ থেকে ২২ শতাংশে নেমে এসেছে, মাতৃমৃত্যুও শিশুমৃত্যু হ্রাস, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, বয়স্ক ও বিধবাভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতাপ্রদান করছে। রপ্তানি আয়, রিজার্ভ ও রেমিট্যান্সসহ সামাজিক ও অর্থনৈতিক সকলসূচকে বাংলাদেশের অবস্থান আজ সুদৃঢ়। বাংলাদেশ ইতিমধ্যে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়শীল দেশে উন্নীত হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ, ২০২৪ সালের মধ্যে পরিপূর্ণ উন্নয়নশীল দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
স্পিকার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে জ্ঞানকেন্দ্র। সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দেশে উচ্চশিক্ষার সুযোগ বৃদ্ধি পাচ্ছে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদেরকে সহনশীলপর্যায়ে খরচের মধ্যে পড়ার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ জানান। এ সময় তিনি মৌলিকশিক্ষার পাশাপাশি বিশেষায়িত শিক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। শিক্ষার্থীদেরকে গুণগত উচ্চশিক্ষা প্রদান করায় ইউল্যাব বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশংসা করেন তিনি। শিক্ষার্থীদের জন্য ইউল্যাব বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সুযোগসুবিধা প্রদান বিষয়টিও অনুসরণযোগ্য বলে স্পিকার উল্লেখ করেন।
ইউল্যাব ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর এইচ এম জহিরুল হকের সভাপতিত্বে জাতীয় অধ্যাপক এমিরেটাস প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম এবং ইউল্যাব বোর্ড অভ ট্রাস্টিজের ভাইস প্রেসিডেন্ট ড. কাজী আনিস আহমেদ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

Share
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত : সিএনআই২৪ ডটকম লিমিটেড || Desing & Developed BY Themesbazar.com