×
ব্রেকিং নিউজ :
সীতাকুন্ডে গৃহবধূকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় এক জনের মৃত্যুদন্ড নৃত্যকলা সাংস্কৃতিক ও আত্মিক মেলবন্ধন তৈরি করে : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার বন্ধে আরো তৎপর হোন : ডিসিদের প্রতি তথ্যমন্ত্রী ভিজিডি দুস্থ নারীদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে : ইন্দিরা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের শুভেচ্ছা বিএসএমএমইউ তহবিলে আর্থিক সহায়তা দিতে বিত্তবান ও ব্যাংকগুলোকে এগিয়ে আসার আহবান বর্তমান সরকার নৌখাতে প্রচুর বিনিয়োগ করেছে : খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আসিয়ান ডায়ালগ পার্টনার হতে ইন্দোনেশিয়ার সমর্থন চেয়েছেন ড. মোমেন আগামী ২৫ জানুয়ারি থেকে বিমানের শারজাহ ফ্লাইট চালু হচ্ছে ‘ভূমি অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকার আইন’ মতামতের জন্য প্রকাশিত : ভূমিমন্ত্রী
  • আপডেট টাইম : 05/01/2022 10:22 PM
  • 47 বার পঠিত

কোরিয়ান এয়ারের একটি চার্টার্ড ফ্লাইট যোগে আজ ৯২ জন বাংলাদেশী কর্মী কোরিয়ায় গেছেন। এটি এ বছর কোরিয়া অভিবাসী শ্রমিকদের প্রথম ব্যাচ। ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বুধবার রাত ৮টা ৫০ মিনিটে ফ্লাইটটি কোরিয়ার উদ্দেশ্য ঢাকা ত্যাগ করে।
দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার কোভিড মহামারীর কারণে ২০২০ সালের মার্চ মাসে বিদেশী কর্মী গ্রহণ স্থগিত করে এবং গত মাস থেকে আবার প্রবাসীদের গ্রহণ করা শুরু করে। পুনরায় চালু হওয়ার পর এ পর্যন্ত মোট ২০৩ জন বাংলাদেশী প্রবাসী কর্মী কোরিয়ায় গেছেন। গত ডিসেম্বরে কোরিয়ায় ১১১ জন বাংলাদেশী শ্রমিক গিয়েছে।
এবারের যাওয়া ৯২ জন শ্রমিকের মধ্যে ৪৪ কর্মী নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত এবং বাকিরা পুনঃপ্রবেশ কর্মী। কোরিয়া ইপিএস (এমপ্লয়মেন্ট পারমিট সিস্টেম) প্রোগ্রামের মাধ্যমে বাংলাদেশসহ ১৬টি দেশ থেকে মাঝারি ও নিন্ম-দক্ষ বিদেশী কর্মী গ্রহণ করে আসছে। তবে মহামারির কারণে, কোরিয়ান সরকার ইপিএস কর্মীদের গ্রহণ স্থগিত করেছিল। প্রেরণকারী দেশগুলোর পাশাপাশি নিয়োগকর্তাদের কাছ থেকে ক্রমাগত অনুরোধগুলো মেনে নিয়ে কোরিয়ান সরকার সীমিত সুযোগ এবং পর্যায়ক্রমে কোয়ারেন্টাইনসহ করোনা সুরক্ষামূলক ব্যবস্থাসহ গত বছরের নভেম্বর থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।
ঢাকায় নিযুক্ত কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং-গুন বলেন, বাংলাদেশের ইপিএস কর্মীরা কোরিয়া-বাংলাদেশ সম্পর্কের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন, যা শুধু বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন নয়, কোরিয়ান শিল্পে শ্রমশক্তি সরবরাহে অবদান রেখেছে। তিনি বাংলাদেশের কর্মী প্রাপ্তির পুনঃপ্রবর্তনকে স্বাগত জানান এবং আশা করেন যে কোরিয়া আগামী বছরগুলোতে বাংলাদেশ থেকে আরও বেশি ইপিএস কর্মীকে স্থান দিতে সক্ষম হবে।
এ পর্যন্ত ইপিএস পদ্ধতিতে ২০ হাজারের বেশি বাংলাদেশী শ্রমিককে কোরিয়া পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...