×
ব্রেকিং নিউজ :
সীতাকুন্ডে গৃহবধূকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় এক জনের মৃত্যুদন্ড নৃত্যকলা সাংস্কৃতিক ও আত্মিক মেলবন্ধন তৈরি করে : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার বন্ধে আরো তৎপর হোন : ডিসিদের প্রতি তথ্যমন্ত্রী ভিজিডি দুস্থ নারীদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে : ইন্দিরা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের শুভেচ্ছা বিএসএমএমইউ তহবিলে আর্থিক সহায়তা দিতে বিত্তবান ও ব্যাংকগুলোকে এগিয়ে আসার আহবান বর্তমান সরকার নৌখাতে প্রচুর বিনিয়োগ করেছে : খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আসিয়ান ডায়ালগ পার্টনার হতে ইন্দোনেশিয়ার সমর্থন চেয়েছেন ড. মোমেন আগামী ২৫ জানুয়ারি থেকে বিমানের শারজাহ ফ্লাইট চালু হচ্ছে ‘ভূমি অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকার আইন’ মতামতের জন্য প্রকাশিত : ভূমিমন্ত্রী
  • আপডেট টাইম : 12/01/2022 11:51 PM
  • 44 বার পঠিত

আজ এখানে এক জাতীয় সেমিনারে বক্তারা করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সৃষ্ট শিক্ষার ক্ষতি পূরণে একটি সুনির্দিষ্ট  সমন্বিত প্রতিকারমূলক প্যাকেজসহ বিকল্প পাঠদান পদ্ধতির মাধ্যমে সারাদেশে তৃণমূল শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছানোর উপর জোর দিয়েছেন। গত বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১৮ মাস স্কুল বন্ধ থাকার ফলে স্কুল ছাত্রদের মানসিক স্বাস্থ্যের উপর লেখা-পড়ার একটা বিশাল ব্যবধান সৃষ্টি হয়েছে, তাই তারা তাদের মনস্তাত্বিক উন্নয়নের জন্য অভিভাবকদের সাথে উঠান  বৈঠকের ব্যবস্থা করার উপর জোর দিয়েছেন। আজ রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে বেসরকারি সংস্থা ফ্রেন্ডশিপ আয়োজিত ‘কোভিড-১৯ মহামারীর সময় ছাত্রদের লার্নিং গ্যাপ : চরাঞ্চলে ফ্রেন্ডশিপের অভিজ্ঞতা’ শীর্ষক সমীক্ষা  প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে এই  সেমিনারে বক্তারা এসব পরামর্শ দিয়েছেন। .
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইআর) দেশের চরাঞ্চলে ফ্রেন্ডশিপ-এর মাধ্যমে বিভিন্ন স্কুল ও লার্নিং সেন্টারের শিক্ষার্থীদের ওপর গবেষণা চালায়।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে  আইইআর-এর প্রফেসর ড. আব্দুল মালেক সভাপতিত্ব করেন।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সেমিনারে বক্তৃতাকালে বলেন, করোনা মহামারীতে বিদ্যালয়ে পাঠদান এবং ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ার সাথে সংযুক্ত রাখা ছিল খুবই কঠিন। তবুও সরকার এবং উন্নয়ন সহযোগিদের প্রচেষ্টায় বিকল্প উপায়ে কোমলমতি ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়া অব্যাহত রাখা সম্ভব হয়েছে। 
তিনি বলেন,  করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে ২০২০ সালের মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশে সব ধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। এমন দুর্দিনে প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যন্ত  প্রায় ৪ কোটি ছাত্র-ছাত্রীর লেখাপড়া চালিয়ে নিতে বিকল্প পদ্ধতিতে উদ্যোগ নেয়া হয়। পাঠদানের মধ্যে অন্যতম ছিল- অনলাইন ক্লাস, বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ জাতীয় গণমাধ্যমে বিভিন্ন বিষয়ের ক্লাস সম্প্রচার ইত্যাদি।
করোনকালে বিকল্প উপায়ে পাঠদান নিয়ে আয়োজিত সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফ্রেন্ডশিপের প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী পরিচালক রুনা খান। তিনি জানান, ২০০২ সাল থেকে চরাঞ্চলে প্রান্তিক জনগোষ্ঠির ভাগ্য উন্নয়নে চেষ্টা চালাচ্ছে ফ্রেন্ডশিপ। সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠির কল্যাণে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে স্বাস্থ্য ও শিক্ষার মত মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায়। তাই করোনা মহামারীর সময় স্বাভাবিক জনকল্যাণমূলক কাজের পাশাপাশি ৪৩টি প্রাথমিক, ১৬টি মাধ্যমিক এবং ৪৯টি বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্রের মাধ্যমে ৪ হাজার ২৯৬ জন ছাত্র-ছাত্রী এবং ৯৮০ জন বয়স্ক শিক্ষার্থীর  লেখাপড়ায় বিশেষ নজর দেয়া হয়েছে ।
কোভিড-১৯ মহামারীকালে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় ঘাটতি এবং চরাঞ্চলে ফ্রেন্ডশিপ শিক্ষা কর্মসূচীর অভিজ্ঞতা নিয়ে গবেষণা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট। গবেষণায় ‘বিকল্প পাঠদান পদ্ধতি এবং এর সুফল’ তুলে ধরেন ইন্সটিটিউটের অধ্যাপক ড. এস এম হাফিজুর রহমান এবং সহযোগি অধ্যাপক শাহ শামিম আহমেদ। 
তারা জানান, মহামারীর সময় প্রত্যন্ত চরে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে লেখাপড়ায় যুক্ত রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশগ্রহণ করানো হয় অনলাইন ক্লাসে। শিক্ষকরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সুস্বাস্থ্য ও পরিচ্ছন্নতা সম্পর্কে সচেতন করেন অভিবাবক ও শিক্ষার্থীদের। মোবাইল ফোনে নেয়া হয় তাদের খোঁজ-খবর। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষকরা বাড়িতে গিয়ে সহযোগিতা করেন লেখাপড়ায়।
সেমিনারে বক্তব্য রাখেন, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক প্রফেসর ড. একিউএম শফিউল আজম, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের সদস্য প্রফেসর ড. এ কে এম রিয়াজুল হাসান, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর প্রশিক্ষণ বিভাগের পরিচালক ড. উত্তম কুমার দাস এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের এটুআই পলিসি স্পেশালিস্ট আফযাল হোসেন সারোয়ার।  তারা জানান, দীর্ঘ সময় বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় ছাত্র-ছাত্রীদের লেখা-পড়ায় ঘাটতি এবং তাদের মানসিক স্বাস্থ্য বিরূপ প্রভাব পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রমের পাশাপাশি মেধার বিকাশ এবং মানসিক স্বাস্থ্য উন্নয়নে বিশেষ গুরুত্ব দেয়ার আহবান জানান তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...